মুশফিকুর রহমান

পোস্টটি করেছেন-

 
  ১৫ জুন ২০২১
 ১০:৫৩

 মিনিট

টয়লেট এবং বাথরুম একত্রে থাকলে সেখানে অজু করা যাবে- কয়েকজন আলেমের মতামত

 বর্তমান বাসা বিল্ডিং স্থাপনাগুলোতে  টয়লেট  এবং বাথরুম একত্রে তৈরি করা হয় । যেহেতু অনেক ইসলামিক স্কলাররাই  বলে থাকেন,  টয়লেটে আল্লাহর নাম না নেয়ার জন্য। সে ক্ষেত্রে আমরা এধরণের টয়লেটে ওযু করতে পারব কিনা , এরকম একটা প্রশ্ন মনে উদয় হয়ে থাকে।  তাই আজ আমরা বাংলাদেশের বিশিষ্ট  কয়েকজন স্কলারের এ বিষয়ে মতামত জানবো। তাহলে চলুন শুরু করা যাক-

শাইখ আহমাদুল্লাহ:

 কুরআন এবং সুন্নাহ আমাদের যে  টয়লেট ব্যবস্থার কথা বলে সেটা হলো আমাদের যে টয়লেট থাকবে মলত্যাগ করার জন্য প্রস্রাব করার জন্য ,  তার সাথে যে ট্যাপ এবং শাওয়ার থাকবে ওযু করার জন্য এবং গোসল করার জন্য,  এ দুটোর মাঝে পার্টিশন থাকবে।

যদি পার্টিশন দেওয়ার ক্ষমতা না থাকে তাহলে একটি প্লাস্টিকের বা যেকোনো  পর্দা ব্যবহার করতে হবে তাহলে  দুটোর মাঝে পার্টিশন হয়ে যাবে । টয়লেটে আল্লাহর নাম নেয়া নিষেধ এটাতে সারা পৃথিবীর ওলামায়ে কেরাম একমত এটাতে কারো কোন দ্বিমত নেই ।

এটাতে আল্লাহর নামের প্রতি অসম্মান  প্রদর্শন করা হয় ।  টয়লেট এবং বাথরুম একসাথে থাকলে যেটা হয়, যেটাই টয়লেট সেটাই বাথরুম যেটাই বাথরুম সেটাই টয়লেট , এরকমই হয় । তাহলে  সেখানে আপনি যেখানেই দাড়িয়েই আল্লাহর নাম নেন সেটা টয়লেটে আল্লাহর নাম নেয়াই হলো। 

অতএব এই ব্যবস্থাপনার চেঞ্জ করলে আমাদের সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে এবং সুন্দর হয়ে যাবে । যদি এটা চেঞ্জ করা সম্ভব না হয়,  তাহলে বাথরুমের বাইরে যে বেসিন আছে ,সেখানে   বিসমিল্লাহ বলে অজু শুরু করুন। শুধুমাত্র  পা ধোয়ার সময় টয়লেটে গিয়ে ধুয়ে নিন। এতে  কোনো অসুবিধা নেই । যদি আপনার বাহিরে টেপের ব্যবস্থা বা বেসিনের ব্যবস্থা না থাকে , তবে আপনার জন্য  টয়লেটে ওযু করা জায়েজ আছে ।  এক্ষেত্রে  আল্লাহর নাম মনে মনে নিবেন ,কিন্তু মুখে নিবেন না ।

আবার কোনো কোনো ওলামায়ে কেরাম বলে থাকেন,  যেহেতু আপনি বাধ্য সেহেতু আপনি টয়লেটে মুখে আল্লাহর নাম উচ্চারণ করতে পারেন । যেহেতু  যেহেতু আল্লাহর নাম নেয়া বিশুদ্ধ মত অনুযায়ী ফরজ ওয়াজিব নয় , এটি সুন্নাহ , তো সুন্নাহ অনুযায়ী আমল করার চাইতে মন্দ কাজ থেকে বাঁচার গুরুত্ব বেশি । 

সেজন্য আপনি মনে মনে আল্লাহর নাম নিবেন , যদি আপনার বাহিরে ট্যাপের কোনো ব্যবস্থা না থাকে। 

মাওঃ মামুনুল হকঃ

 গোসলখানা এবং টয়লেটের মাঝে যদি কোনো  আড়াল না থাকি , কোনো দেয়াল অথবা পর্দা না থাকে

সে ক্ষেত্রে সেখানে আপনি ওজু করতে পারেন, তবে  ওযুর পূর্বে বিসমিল্লাহ বলা সুন্নত ,এক্ষেত্রে বিসমিল্লাহ বা  যেকোনো আল্লাহর নাম উচ্চারণ অথবা  কোনো  দোয়া-জিকির করা যাবেনা,

তবে অজু করে নিলে অজু হয়ে যাবে।

মুফতি কাজি ইব্রাহিমঃ

যদি টয়লেট এবং বাথরুম একত্রে থাকে ,যেহেতু এটি নাপাক জায়গা , এক্ষেত্রে আপনি বাহিরে বিসমিল্লাহ বলবেন, এরপরে  ভিতরে প্রবেশ করে অজু করে নিবেন।

শাইখ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফঃ

 টয়লেট বাথরুম সবসময় পৃথক রাখা উচিত ।

আমাদের দেশের সিস্টেম অনুযায়ী  টয়লেট বাথরুম একই জায়গায়।  যদিও পানি দিলে সেটা ধুয়ে যায় এজন্য কোনো সমস্যা হবে না । তবে পৃথক করা ভালো।

এক্ষেত্রে আপনি  যখন টয়লেটে বসবেন , দোয়া পড়ে নিবেন , যখন শেষ হয়ে যাবে উঠে শেষের দোয়া পড়ে নিবেন। এখন আপনি ফ্রি হয়ে গেছেন ।

এখন আপনি  বিসমিল্লাহ বলে ওজু করেন কোন সমস্যা নেই ।

তবে এসব টয়লেট খুব পরিষ্কার থাকে যেনো। 

মোল্লা নাজিম উদ্দিনঃ

যদি টয়লেট এবং বাথরুম দুটো একত্রে হয় , এসব টয়লেট যেহেতু আমরা অনেক পরিষ্কার  রাখি। যদি টয়লেট আলাদা একটা জায়গায় এবং ওযু করার জায়গাটা আরেক পাশে হয় , তবে সেখানে আপনি অজু করতে পারবেন ,কোন সমস্যা নেই।

তবে এমন যদি হয় সেখানে শুধুমাত্র টয়লেট যে জায়গাটিতে আমরা টয়লেট করি ,কোনো গোছলখানার ব্যাবস্থা নেই, ওখানে দাঁড়িয়ে  ওযু করা যাবে না এবং গোসল করাও যাবে না ।

শাইখ ড. মনজুরে এলাহীঃ

টয়লেট এবং বাথরুম একত্রে থাকলে  ,  টয়লেট যদি অপরিষ্কার থাকে নোংরা থাকে   এবং   কমোড ঢাকার কোন অপশন নেই অথবা টয়লেট এবং বেসিনের মাঝখানে কোন পর্দা নেই, সেই ধরনের টয়লেটগুলো শুধুমাত্র নিষেধ করা হয়েছে ভেতরে কোন দোয়া কালাম পড়া বা ওযু গোসল করা ইত্যাদি । যেহেতু শহুরে  যে টয়লেট গুলো থাকে সেগুলো অনেক  প্রশস্ত থাকে এবং টয়লেটগুলো সাধারণত এক প্রান্তে থাকে এক্ষেত্রে যদি টয়লেটগুলো ঢেকে ফেলা সম্ভব হয় তাহলে অতি উত্তম সেটি ঢেকে রেখে তারপরে বেসিনে গিয়ে  অথবা ট্যাপে গিয়ে বিসমিল্লাহ বলে আপনি অজু করতে পারবেন ইনশাআল্লাহ। যদি একটি সুন্দর পর্দা টেনে দেয়া যায় সেটি সবচেয়ে ভালো। 

আমাদের কথাঃ 

 অসংখ্য স্কলারগণ এ বিষয়ে মতামত প্রকাশ করেছেন । তাদের সকলেরই সামান্য কিছু মতের পার্থক্য থাকলেও তাদের প্রত্যেকেই এই কথায় একমত যে , টয়লেট এবং বাথরুম একত্রে না থাকায় উত্তম । তাই বাসাবাড়িতে বা যেকোনো স্থাপনায় টয়লেট এবং বাথরুম তৈরীর ক্ষেত্রে দুটিকেই আলাদা দেয়াল বা পার্টিশন এর মাধ্যমে বিভক্ত করে তৈরি করা উচিত। আর যদি বিল্ডিং তৈরি হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে এটিকে তো আর ভাঙ্গা সম্ভব নয় ,এক্ষেত্রে পর্দা অথবা হার্ডবোর্ড বা অন্য কিছুর পার্টিশন তৈরি করে আলাদা করার সর্বোত্তম কাজ হবে বলে আমরা মনে করি।

শেয়ার করুন__

guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments